সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০১:৪১ পূর্বাহ্ন

নোটিশ :
Welcome To Our Website...
একজন শাহজাহান সিরাজ ও আদ্যোপান্ত

একজন শাহজাহান সিরাজ ও আদ্যোপান্ত

স্বাধীনতা ও স্বাধীনতা পূর্ববর্তী উত্তাল ছাত্র আন্দোলনের নেতৃত্বদানকারী ৪ খলিফা খ্যাত ৪ জনের একজন শাহজাহান সিরাজ। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠকারী, স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের এই বর্ষীয়ান রাজনীতিক এখন জীবন-মৃত্যুর সংকটাপন্নে।

বিএনপির এই সাবেক ভাইস-চেয়ারম্যান ও মন্ত্রী শাহজাহান সিরাজ দীর্ঘদিন দুরারোগ্য ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করছেন। তিনি এখন মুমূর্ষু অবস্থায় আছেন। রাজধানীর গুলশান-১ এ মেয়ের বাসায় অবস্থান করছেন।

বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসের অন্যতম এই রাজনীতিবিদ ১৯৪৩ সালের ১ মার্চ টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে জন্ম গ্রহণ করেন।  পিতার নাম আব্দুল গণি মিয়া ও মাতা রহিমা বেগম। মেয়ে ব্যারিস্টার সারোয়াত সিরাজ ও ছেলে রাজীব সিরাজ নিয়ে তার সংসার। ছেলে থাকেন বিদেশে।

স্ত্রী রাবেয়া সিরাজও ছাত্রজীবন থেকেই রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। বর্তমানে তিনিও বিএনপির অঙ্গসংগঠন মহিলা দলের নেত্রী, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-তাঁতী বিষয়ক সম্পাদক।

শাহজাহান সিরাজের রাজনীতি আসেন ১৯৬২ সালে হামিদুর রহমান শিক্ষা কমিশন বিরোধী আন্দোলনের মাধ্যমে। তিনি টাঙ্গাইলের করটিয়া সাদত কলেজে ছাত্রলীগে রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হোন। ১৯৬৪-৬৫ এবং ১৯৬৬-৬৭ দুই মেয়াদে তিনি দুইবার করটিয়া সা’দাত কলেজের ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হয়েছিলেন।

ষাটের দশকে ছাত্রলীগের মাধ্যমে তার রাজনীতিতে হাতেখড়ি। বর্তমানে তার বয়স ৭৩ বছর। টাঙ্গাইল সাদত কলেজের ছাত্র সংসদে একবার সাধারণ সম্পাদক ও দুবার ভিপি ছিলেন তিনি।

১৯৬৯ সালের গণঅভ্যত্থানে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন। পরবর্তীতে তিনি ১৯৭০ সালে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

১৯৭১ সালের ২ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন আ স ম আবদুর রব। সেখান থেকেই পরবর্তী দিনে স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠের পরিকল্পনা করা হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩ মার্চ ১৯৭১ পল্টন ময়দানে বিশাল এক ছাত্র জনসভায় বঙ্গবন্ধুর সামনে স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠ করেছিলেন শাজাহান সিরাজ। এরপর যুদ্ধ শুরু হলে তিনি সশস্ত্র যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে ‘বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স’ (বিএলএফ) বা মুজিব বাহিনীর কমান্ডার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

স্বাধীনতা পরবর্তী জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) যখন গঠিত হয় তিনি তার অন্যতম উদ্যোক্তা ছিলেন। প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে তিনি সহকারী সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান। পরে জাসদের সভাপতিও নির্বাচিত হয়েছিলেন। জাসদের মনোনয়নে ৩ বার তিনি জাতীয় সংসদের টাঙ্গাইল-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

শাহজাহান সিরাজ ১৯৯৫ সালে বিএনপিতে যোগ দেন। তিনি বিএনপির মনোনয়নেও একবার একই আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ৯১-৯৫ সালের বেগম খালেদা জিয়ার সরকারের শেষ পর্যায়ের দিকে নৌপরিবহন মন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

২০০১ সালে পুনরায় চারদলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় এলে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া তাকে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেন। পরে তিনি পাটমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ

October 2019
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  

Weather

booked.net




© All Rights Reserved – 2019-2021
Design BY positiveit.us
usbdnews24